1. alauddin.reporter24@gmail.com : Alauddin Sikder : Alauddin Sikder
  2. ukhiyasomoy@gmail.com : Ukhiyasomoy : Monibul Alam Rahat
  3. monibulalamrahat@gmail.com : Riduan Sohag : Riduan Sohag
রবিবার, ১১ এপ্রিল ২০২১, ০৭:৪২ অপরাহ্ন
শিরোনামঃ
ভাষা শহীদদের প্রতি এবি পার্টি উখিয়ার শ্রদ্ধা নিবেদন বান্দরবানে বিজিবির সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা নিহত এড. গোলাম ফারুক খান কায়সার এর শ্বশুরের ইন্তেকালে এবি পার্টি উখিয়া উপজেলার শোক ইসলামী আন্দোলন গণমানুষের মুক্তির লক্ষ্যে রাজনীতি করে- গাজী আতাউর রহমান উখিয়ায় এবি পার্টি কতৃক ছাত্রদের সাথে মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত মরিচ্যায় পালং ডিজিটাল মেডিকেল সেন্টারে নিয়মিত রোগী দেখছেন অভিজ্ঞ চিকিৎসকরা জমি নিয়ে বিরোধে প্রতিপক্ষের গুলিতে নিহত ১, গুরুতর আহত ২ উখিয়ায় প্রশাসনের উচ্ছেদ অভিযান: ৩৯ হাজার টাকা অর্থদণ্ড উখিয়ায় বাজার মনিটরিংয়ে ৮০কেজি নষ্ট মিষ্টি ধ্বংস! জালিয়াপালং স্পোর্টস একাডেমি’কে হারিয়ে সেমিফাইনালে ‘পালং স্পোর্টিং ক্লাব’

৭শ’ বছরের পরিত্যক্ত মসজিদে পুনরায় আজান ও নামাজ শুরু!

  • আপডেট টাইমঃ বৃহস্পতিবার, ৩ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৬০

জাগো নিউজ

জয়পুরহাটের ক্ষেতলাল উপজেলার পাঠানপাড়ায় কয়েক শতাব্দি ধরে পরিত্যক্ত থাকা মসজিদে পুনরায় আজান ও নামাজ শুরু হয়েছে। শতাধিক বছর পর হলেও আপন পরিচয়ে ফিরেছে মসজিদটি। গত মঙ্গলবার (১ ডিসেম্বর) স্থানীয় আলেম ড. ইকলিমুর রেজার আজান-ইকামত ও জামিয়া ইসলামিয়া আজিজিয়া আনওয়ারুল উলুম (হিলি) মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা শামছুল হুদা খানের ইমামতিতে জোহরের নামাজ আদায়ের মাধ্যমে পুনরায় পরিত্যক্ত এ মসজিদে আজান ও নামাজ চালু হয়।

ক্ষেতলাল উপজেলার পাঠানপাড়ায় পরিত্যক্ত এ মসজিদে গত মঙ্গলবার প্রথম ইকামত দেন স্থানীয় আলেম ড. ইকলিমুর রেজা। আর ইমামতি করেন মাওলানা শামছুল হুদা খান। এ সময় স্থানীয় মান্যবর ব্যক্তি, আলেম-উলামা ও জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিতি ছিলেন।

পাঠানপাড়ায় পরিত্যক্ত এ মসজিদটি আবাদের মূল উদ্যোক্তা ড. ইকলিমুর রেজা। এখন মসজিদ ও আশ-পাশের জমিজমা মালিকানা তার বাবা-চাচাদের মালিকানায় রয়েছে।

কয়েকশ বছর আগে থেকে মসজিদের আশপাশে হিন্দুদের বস‌তি গ‌ড়ে উ‌ঠে। মস‌জিদ‌টিও হিন্দুদের মা‌লিকানায় চলে যায়। ১৯৭২ সালে তাঁর বাবা ও বড় চাচা হিন্দু মালিকদের কাছ থেকে পাঁচ একরের মতো ভূমি কেনেন। তারপর থেকে এ মসজিদটিও মুসলিমদের মালিকানায় চলে আসে। কিন্তু গত প্রায় ৫০ বছর ধরেও মসজিদটিতে নামাজের উদ্যোগ নেয়নি কেউ।

তবে ব্রিটিশ আমল থেকে ভূমির কিছু অংশ মসজিদ হিসেবে চিহ্নিত ছিল বলে জানা যায়। তখন ভূমি অফিসের দায়িত্বশীলরা তাদেরকে মসজিদের তত্ত্বাবধায়ক এবং অবশিষ্ট ভূমির মালিকানা প্রদান করে দলিল করে দেন।

হাজার বছরের পুরনো মসজিদটির অবকাঠামো প্রায় ধ্বংসস্তুপে পরিণত হয়েছে। দীর্ঘ ৭শ’ বছর পরিত্যক্ত থাকায় এটির ইটের গাথুনি খুলে খুলে পড়ছে। ধ্বংসপ্রায় মসজিদটির আঙ্গিনায় সামিয়ানা টানিয়ে গত মঙ্গলবার স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও স্থানীয় মুসল্লিরা নামাজ পড়েছেন।

উপজেলার পাঠানপাড়ায় অবস্থিত মসজিদটি শত শত বছর ধরে পরিত্যক্ত ছিল। স্থানীয়দের ধারণা, প্রায় হাজার বছর আগে সুলতানি আমলে নির্মিত এ মসজিদ। মসজিদটির সামনে রয়েছে সান বাধানো পাকা ঘাট এবং প্রাচীন পুকুর। যা দেখে সহজেই অনুমান করা যায় যে, এখানে হয়তো কোনো নগরের অস্থিত্ব ছিল।

মসজিদে আজান ও নামাজের জন্য উদ্যোগ নিয়েছেন স্থানীয় আলেম ড. ইকলিমুর রেজা ও দাঈ মুফতি জোবায়ের। তাদের কণ্ঠেই প্রথম ধ্বনিত হয় আল্লাহু আকবার ধ্বনি। শুরু হয় নামাজ। পরিত্যক্ত থাকা ঐতিহাসিক এ মসজিদে আজান ও নামাজ শুরু হওয়ায় স্থানীয়দের মাঝে খুশির আমেজ তৈরি হয়েছে। অনেককেই আনন্দ ও উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে আনন্দে বলতে থাকেন, দীর্ঘ দিন পর হলেও আপন পরিচয়ে ফিরেছে পাঠানপাড়ার এ মসজিদ।

উল্লেখ্য, ড. একলিমুর রেজাসহ স্থানীয়রা সেখানে একটি ইসলামিক কমপ্লেক্স করতে চায়। তাই গত মঙ্গলবার মসজিদের সঙ্গে একটি মাদরাসাও উদ্বোধন হয়েছে। এ ইসলামিক কমপ্লেক্সে থাকবে মসজিদ, মাদরাসা, গণপাঠাগারসহ একাধিক সামাজিক প্রতিষ্ঠান।



নিউজটি শেয়ার করুন...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরো খবর...





নামাজের সময় সূচি

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ভোর ৪:২৬
  • দুপুর ১২:০১
  • বিকাল ১৬:২৮
  • সন্ধ্যা ১৮:২০
  • রাত ১৯:৩৫
  • ভোর ৫:৩৯
Ukhiyasomoy©Copyright All Rights Reserved 2019
Developed By Theme Bazar